AUDUSD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট (২২-২৬ আগস্ট, ২০২২)

অস্ট্রেলিয়ার নেতিবাচক জব রিপোর্ট ও ডলারের ঊর্ধ্বমূখী অবস্থান অব্যাহত থাকায় AUDUSD বিয়ারিশ অবস্থানে থাকতে পারে।রিজার্ভ ব্যাংক অফ অস্ট্রেলিয়ার (RBA) আগস্টের নীতিগত বৈঠকের কার্যবিবরণী অনুসারে, অস্ট্রেলিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংক বিশ্বাস করে উচ্চ মুদ্রাস্ফীতি রোধ করার জন্য ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধি প্রয়োজন। দেশটির বেকারত্বের হার জুলাই মাসে ৪৮ বছরের সর্বনিন্মে নেমে আসে।

মার্কিন ডলারের ঊর্ধ্বমূখী অবস্থানের বিপরীতে অস্টেলিয়ার নেতিবাচক জব রিপোর্ট পেয়ারকে ডাউনট্রেন্ডে রেখেছিলো। বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ান ব্যুরো অফ স্ট্যাটিস্টিকস দ্বারা প্রকাশিত ডাটা অনুসারে, বেকারত্বের হার ৩.৪% কমেছে। যদিও বিশ্লেষকরা আশা করেছিলেন ৩.৫% থাকবে। ১৯৭৪ সালের পরবর্তীতে সেক্টরটি সর্বনিন্ম স্তরে অবস্থান করছে। 

জব সেক্টরে ২৫ হাজার বৃদ্ধি প্রত্যাশা করা হলেও বাস্তবে ৪০ হাজার ৯০০ কমেছে। গত সপ্তাহে মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধির পেছনে মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের নীতিনির্ধারকদের মন্তব্য ডলারের প্রাইস বৃদ্ধিতে সহায়তা করেছে। এর ফলে AUDUSD পেয়ার বিয়ারিশ অবস্থান ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে।

এ সপ্তাহে যা হতে পারে

বিনিয়োগকারীদের এ সপ্তাহে নজর থাকবে মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের আলোচনার দিকে। পাওয়েলের আলোচনাকে কেন্দ্র করে AUDUSD পেয়ারের মুভমেন্ট বৃদ্ধি পেতে পারে।

এছাড়াও দ্বিতীয় প্রান্তিকের মার্কিন জিডিপি -১.৬% থেকে বেড়ে -০.৮% আসার সম্ভাবনা রয়েছে। টেকসই পণ্যের অর্ডার ১.৯% থেকে কমে ০.৫% আসার প্রত্যাশা করা হচ্ছে।

AUDUSD টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস

ডেইলি চার্টে AUDUSD পঞ্চমদিনের মতো ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। পেয়ারটি বর্তমানে ২২ SMA-এর নিচে অবস্থান করছে। যা প্রাইস কমার নির্দেশ দিচ্ছে। ১৪ দিনের RSI ইনডিকেটর অনুযায়ী AUDUSD ৫০ পয়েন্টের নিচে অবস্থান করছে।  সুতরাং এখানেও প্রাইস কমার সম্ভাবনা রয়েছে।

AUDUSD-এর শক্ত সাপোর্ট লেভেল হিসেবে দেখা হচ্ছে ০.৬৮৫০। ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে এক্ষেত্রে ০.৬৭০৭৭ সাপোর্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

AUDUSD  ডেইলি চার্ট

Leave a Comment

Your email address will not be published.

হোম
নিউজ
ট্রেডিং স্কুল
ব্রোকার
সিগন্যাল
ক্লাব
Scroll to Top