২ দশকের নিন্ম প্রাইসে ইউরো

সম্প্রতি মার্কিন ডলার উচ্চ প্রাইস থেকে নিচে নামতে শুরু করেছে। ক্রমবর্ধমান মন্দার আশঙ্কায় ইউরো চাপের মধ্যে রয়েছে।হতাশাজনক মার্কিন সার্ভিস ও মেনুফেকচারিং পিএমআই গতকাল ডলারের প্রাইস কমার ক্ষেত্রে সহায়তা করেছিলো। তবে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধির সম্ভাবনা মার্কিন ডলারকে দুই দশকের মধ্যে ইউরোর বিপরীতে শক্তিশালী স্তরে ঠেলে দিয়েছে।

রাশিয়া নর্ড স্ট্রীম ১ পাইপলাইন থেকে গ্যাস সরবরাহ মাসের শেষের ৩দিন বন্ধ রাখবে এমন ঘোষণা বিনিয়োগকারীদের উদ্বেগ বাড়িয়ে দিচ্ছে। যা ইউরোর প্রাইস কমাতে সহায়তা করছে। এর ফলে ইউরো দুই দশকের সর্বনিন্ম প্রাইসে নেমে এসেছে।

অপরদিকে ইউরো অঞ্চলে খুব তাড়াতাড়ি শীত আসছে। কিছু বিশেষজ্ঞদের মতে, রাশিয়া ৩দিনের বেশি গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখতে পারে। যা ইউরোজোন প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে বড় বাধা হতে পারে। এছাড়াও রাশিয়া শীত মৌসুমে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দিলে সেক্ষেত্রে ইউরোজোন অঞ্চলে জ্বালানি সংকট তীব্র হতে পারে।

যা ইউরো অঞ্চলের প্রবৃদ্ধির জন্য বড় বাধা তৈরি করবে। গত শুক্রবার প্রকাশিত, রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় অ্যানার্জি সংস্থা গ্যাজপ্রম বলেছে, রাশিয়া রক্ষণাবেক্ষণের কারণে নর্ড স্ট্রিম ১ এর মাধ্যমে ৩ দিনের জন্য ইউরোপে প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করবে। এমন সম্ভাবনা ইউরো বিনিয়োগকারীদের মাঝে উদ্বেগ বাড়িয়েছে।  যা ইউরোকে ডলারের বিপরীতে নতুন করে ২ দশকের সর্বনিন্ম প্রাইসে নিয়ে এসেছে।

মঙ্গলবার ইউরো ১ ডলারে থাকলেও পরবর্তীতে কমে সর্বনিন্ম ০.৯৯০০৫ প্রাইসে এসেছিলো। তবে আজ মঙ্গলবার কিছুটা রিকভার করে ০.৯৯৫০-এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। ইউরোপের ফরেক্স বিশেষজ্ঞ প্রধান সাইমন হার্ভে বলেছেন, ইউরোজোন মার্কেটের বর্তমান অবস্থানের ইউরোর পক্ষে ডলারের সমতার উপরে ঠেলে উঠা খুবই কঠিন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

হোম
নিউজ
ট্রেডিং স্কুল
ব্রোকার
সিগন্যাল
ক্লাব
Scroll to Top