ফেড মিটিংয়ের পূর্বে ২০ বছরের সর্বোচ্চ প্রাইসে ডলার

মঙ্গলবার ইউরোপিয়ান ট্রেডিং সেশনের প্রথম দিকে মার্কিন ডলারের প্রাইস কমেছিল, কিন্তু ফেডারেল রিজার্ভের আরেকটি আক্রমনাত্মক ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধির সম্ভাবনা ডলারকে ২০ বছরের সর্বোচ্চে নিয়ে এসেছিলো। আজ বুধবার এশিয়ান সেশনেও ডলার আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। বর্তমানে ডলার ০.০৫% বৃদ্ধি পেয়ে ১১০.০০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। ৭ সেপ্টেম্বর পেয়ারটি দুই দশকের সর্বোচ্চ প্রাইস ১১০.৭৯ প্রাইসে পৌঁছে ছিলো।

মার্কিন ডলারের ‍প্রাইস বৃদ্ধির পেছনে দেশটির উচ্চ মুদ্রাস্ফীতির ফলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধি কাজ করছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধির মাধ্যমে মূলত মুদ্রাস্ফীতিকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে চাচ্ছে।

প্রত্যাশা করা হচ্ছে, ব্যাংক মুদ্রাস্ফীতি ৭৫ বেসিস বৃদ্ধি করবে। গত সপ্তাহে কনজিউমার প্রাইস ইনডেক্স উচ্চ পর্যায়ে থাকার কারণে কিছু বিনিয়োগকারী বিশ্বাস করছেন রেট সম্পূর্ণ শতাংশ বৃদ্ধি পেতে পারে। অপ্রত্যাশিতভাবে ব্যাংক ইন্টারেস্ট রেট সম্পূর্ণ শতাংশ বৃদ্ধি করলে সেক্ষেত্রে ডলারের প্রাইস ব্যাপক বৃদ্ধি পেতে পারে।

এদিকে ইউরোজোনে মুদ্রাস্ফীতি বৃদ্ধির ফলে গত সপ্তাহে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ইন্টারেস্ট হার ৭৫ বেসিস পয়েন্ট বাড়িয়েছে কারণ অঞ্চলটি দুই অঙ্কের কাছাকাছি মুদ্রাস্ফীতি মোকাবেলা করার চেষ্টা করেছিলেন। ইউরোজোনের বৃহত্তম অর্থনীতির এই নিউজ ইউরোকে স্বল্প মেয়াদে শক্তিশালী করেছিলো।

তবে মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের ইভেন্টের ফলে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধির সম্ভাবনাটাই বেশি থেকে যাচ্ছে। ব্যাংক অপ্রত্যাশিত ইন্টারেস্ট রেট সম্পূর্ণ শতাংশ অর্থাৎ ২.৫% থেকে বৃদ্ধি করে ৩.২৫% করলে ডলারের প্রাইসে ব্যাপক বৃদ্ধি পেতে পারে।  এক্ষেত্রে ডলার ১১২-তে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

হোম
নিউজ
ট্রেডিং স্কুল
ব্রোকার
সিগন্যাল
ক্লাব
Scroll to Top