প্যাটার্ন পরিচিতি

প্রারম্ভিক কিছু কথা

ফরেক্স ট্রেডিং এ যত ধরনের Chart ব্যবহৃত হয় তার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় Chart হচ্ছে Candlestick Chart, প্রায় সকল দেশের অভিজ্ঞ ট্রেডার মাত্রই এই Candlestick Chart ব্যবহার করে থাকেন। কারণ, এই Candlestick এর কিছু বিশেষ বৈশিষ্ট্য আছে যার দ্বারা ট্রেডিং মার্কেটের ক্রেতা-বিক্রেতাদের আচরণ, ভবিষ্যত কর্ম-পন্থা, ইত্যাদি Chart এ প্রস্ফুটিত হয়। এই Candlestick এর ইতিহাস, গঠন পদ্ধতি, ইত্যাদি মৌলিক বিষয়াদি আলোচনা করা হলে এই সংক্ষিপ্ত রচনাটি বিশাল পান্ডুলিপিতে পরিণত হয়ে যাবে এবং মূল বিষয়বস্তু হতে পাঠক দূরে সবে যাবে, তাই  সেই সকল মৌলিক বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা থেকে বিরত থাকা হলো।

আমরা বিভিন্ন প্রকার Candlestick সম্বন্ধে কম-বেশি ভিন্ন ভিন্ন Topics পড়ে জেনেছি। এই Candlestick সমূহকে বহু ধরনের কম্বিনেশনে বা প্যাটার্নে সজ্জিত অবস্থায় পাওয়া যায়।  এই কিম্বিনেশন বা প্যাটার্নগুলোকে মনে রেখে ফরেক্স ট্রেডিং এ Buy এবং Sale  এর সিদ্ধান্ত নিতে হয়, কিন্তু সকল ধরনের প্যাটার্ন মনে রাখা খুবই কঠিন কাজ। সকল ধরনের প্যাটার্নগুলোকে যদি এক নজরে দেখা যেতো, তাহলে মনে রাখা খুবই সহজ হতো। সেই উদ্দেশ্যে Candlestick এর প্রচলিত প্রায় সকল ধরনের প্যাটার্নগুলোকে Table এর মধ্যে অংকন করে তাদের পরিচিতি এবং প্রয়োগ সংক্ষিপ্ত আকারে দেখানো হলো। সংক্ষিপ্ত আকারে প্রকাশ করতে গিয়ে এই Topic এ কতগুলো জরুরী বিষয় বাদ দেওয়া হয়েছে, যেমন- Candlestick প্যাটার্নের দ্বারা ক্রেতা-বিক্রেতাদের কি আচরণ অথবা মনোভাব প্রকাশ পায়, কোন প্যাটার্ন কি পরিমাণ শক্তিশালী সিগন্যাল প্রদান করে ইত্যাদি। তাই প্রত্যেক প্যাটার্ন গঠনের কারণ, প্যাটার্নের শক্তির মাত্রা এবং প্যাটার্ন সম্পর্কিত আনুষাঙ্গিক বিষয়াদি ইন্টারনেট থেকে জেনে নেওয়ার ক্ষুদ্র কাজটি পাঠকদের দায়িত্বে অর্পন করা হলো।

পরিশেষ, প্যাটার্ন সম্পর্কিত মূল লেখায় যাওয়ার আগে একটি কথা অবশ্যই সকল পাঠকদের জানা দরকার যে, এই Topic এ (প্রবন্ধে) ভিন্ন ভিন্ন নামের একই জাতীয় অনেক প্যাটার্নকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে সেগুলোর গঠন-কাঠামো, ফলাফল এবং ব্যবহার পদ্ধতি প্রায় একই রকম। আপাতঃ দৃষ্টিতে এই সমস্ত প্যাটার্ন সমূহকে ভিন্ন ভিন্ন নামের একই প্যাটার্ন মনে হলেও প্রকৃতপক্ষে প্রত্যেক প্যাটার্নই ভিন্ন ভিন্ন বৈশিষ্ট্যের অধিকারী, এই ‘‘Topic’’ এর সাইজকে সংক্ষিপ্ত আকারে সীমাবদ্ধ রাখার প্রয়াসে একই রকম দেখতে প্যাটার্নগুলোর মধ্যকার সূক্ষ আর্থক্য সমূহ বিস্তারিত আলোচনা করা সম্ভব হয়নি। পাঠকদের পক্ষে সহজে এই প্রবন্ধ (রচনা) পড়ার উদ্দেশ্যে একই জাতীয় প্যাটার্নগুলোর নাম (পৃষ্ঠা নং ৯২-৯৫ এ) নির্দিষ্ট বক্সের মধ্যে লিখে একাধিক তালিকা (List) তৈরি করা হয়েছে, যাতে পাঠকগণ সহজেই একই জাতীয় প্যাটার্নগুলোর মধ্যে পারস্পরিক তুলনা করে মিল ও অমিলগুলো নির্ণয় করতে পারে।

নিবেদক
নাসিম

Candlestick সম্মন্ধে প্রাথমিক আলোচনা

Candlestick এর সংক্ষিপ্ত পরিচিতি:

ফরেক্স ট্রেডিং ব্যবসার শুরু থেকেই যে সকল Chart ব্যবহার করা  হতো সে সকল Chart গুলোর মধ্যে অন্যতম প্রধান হলো ‘‘Line Chart’’, ‘‘Standard Bar Chart’’, ইত্যাদি। কিন্তু এই সমস্ত Chart এর প্রতিটিরই বহুবিধ সমস্যা রয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময়ের এই ব্যবসায় বহু বছর ধরে জাপানীরা এক বিশেষ ধরনের Chart ব্যবহার করেছে, যা ‘‘Candlestick Chart’’ নামে পরিচিত। সাম্প্রতিককালে সমগ্র বিশ্বে এই ‘‘Candlestick Chart’’ ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে, কারণ এটির বিভিন্ন রকমের কম্বিনেশন বা প্যাটার্ন ট্রেডিং মার্কেটের অবস্থা (ট্রেড), ক্রয়-বিক্রয়ের চাপ, ইত্যাদি সহজবোধ্য রূপে প্রকাশ করে। এই প্যাটার্নগুলো নিয়ে আলোচনার পূর্বে Candlestick এর গঠন নিয়ে সংক্ষেপে কিছু আলোচনা করা দরকার।

উপরে দুইটা Candlestick এর নমুনায় দেখা যাচ্ছে যে, একটি সবুজ রংয়ের এবং অপরটি লাল রংয়ের। সবুজ (সাদা) রংয়ের Candlestick মার্কেটের Uptrend এর নীচে Open এবং Close লেখা রয়েছে। অন্যদিকে, লাল রংয়ের Candlestick এর উপরে Open এবং নীচে Close লেখা রয়েছে। Candlestick এর মূলতঃ দুইটা অংশ- (১) Real Body এবং Shadow (Body এর উপরে এবং নীচে)। এই Real Body এবং Shadow কখনও খুব ছোট, আবার কখনও অনেক বড় হয় এবং ট্রেডিং মার্কেটের ভিন্ন ভিন্ন ট্রেডিং পরিস্থিতি প্রকাশ করে।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

হোম
নিউজ
ট্রেডিং স্কুল
ব্রোকার
সিগন্যাল
ক্লাব
Scroll to Top